< গনোরিয়া এন্টিবায়োটিক ঔষধ |গনোরিয়া রোগ থেকে মুক্তির উপায় | মহিলাদের গনোরিয়া | মহিলাদের গনোরিয়ার লক্ষণ - সঠিক তথ্যের ঘর
ঔষধ.com

গনোরিয়া এন্টিবায়োটিক ঔষধ |গনোরিয়া রোগ থেকে মুক্তির উপায় | মহিলাদের গনোরিয়া | মহিলাদের গনোরিয়ার লক্ষণ

গনোরিয়া এন্টিবায়োটিক ঔষধ |গনোরিয়া রোগ থেকে মুক্তির উপায় | মহিলাদের গনোরিয়া | মহিলাদের গনোরিয়ার লক্ষণ

গনোরিয়া এন্টিবায়োটিক ঔষধ

এই রোগের চিকিৎসায় অ্যান্টিবায়োটিকে বেশ ভাল সুফল পাওয়া যায়। সঠিক সময়ে রুগীকে গনোরিয়া এন্টিবায়োটিক ঔষধ খাওয়া গনোরিয়া থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।২০১৬ সাল থেকে ইনজেকশনের মাধ্যমে ceftriaxone এবং ট্যাবলেট বা ক্যাপসুলের মাধ্যমে অ্যাজিথ্রোমাইন (azithromycin) ওষুধ ব্যবহার করা হচ্ছে। নিচে কয়েকটি গনোরিয়া অ্যান্টিবায়োটি ঔষধের নাম দেওয়া হলো।

গনোরিয়া-এন্টিবায়োটিক-ঔষধ
গনোরিয়া-এন্টিবায়োটিক-ঔষধ

এখান থেকে যে কোন একটি অ্যান্টিবায়োটি খেলে গনোরিয়া রোগ ভালো হতে পারে। যে কোন ধরনের অ্যান্টিবায়োটি ঔষধ খাওয়ার আগে একজন ভালো চিকিৎসক এর পরামর্শ নিতে হবে। আমরা কখনো গনোরিয়া রোগ বা অন্য কোন রোগের ঔষধ খাওয়ার জন্য উৎস দেই না। চিকিৎসক সাথে কথা না বলে অনলাইনে মাধ্যমে গনোরিয়া রোগের অ্যান্টিবায়োটি টেবলেট খাওয়া স্বাস্থ্য বিপদজনক যুগের মুখে পড়তে পারে।

মহিলাদের গনোরিয়া

গনোরিয়া রোগ মহিলাদের, মহিলাদের গনোরিয়া
গনোরিয়া রোগের মহিলাদের

মহিলাদের গনোরিয়া রোগটি হলে সন্তান জন্মদানের সমস্যা সহ নানারকম শারীরিক জটিলতা দেখা দেয়। তাই যত দ্রুত সম্ভব মহিলাদের গনোরিয়া রোগটি নিরাময় করতে হবে। গর্ভবতী মহিলাদের গনোরিয়া হলে, গর্ভের সন্তান অন্ধ অথবা অন্য কোন সমস্যা হতে পারে। সন্তানের অগনোরিয়া রোগটি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

আরো পড়ুনঃ  মাসিক হলে রোজা রাখা যাবে কিনা | মাসিক হলে কি রোজা ভেঙে যায়

মহিলাদের গনোরিয়ার লক্ষণ

মহিলাদের গনোরিয়া রোগের লক্ষণ গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছেঃ মহিলাদের ক্ষেত্রে এই ব্যাকটেরিয়াটি জনন অঙ্গের সমূহ ক্ষতি করে। জরায়ু, ফ্যালপিয়ান টিউব, ওভারি একত্রে আক্রান্ত হলে তলপেটে তীব্র ব্যাথা হয় এবং অনেক সময়ই ফ্যালপিয়ান টিউব দুটি ব্লক হয়ে যায়, ফলস্বরূপ ভবিষ্যতে সন্তান ধারণে সমস্যার সৃষ্টি করে। সংক্রমণের ২-১৪ দিনের মধ্যেই রোগটির লক্ষণ প্রকাশ পায়। তবে অনেক রোগীর ক্ষেত্রে এই রোগটি কোনও রকম লক্ষণ সৃষ্টি করে না।তবে সাধারণত নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি লক্ষ্য করা যায়-

মহিলাদের গনোরিয়া রোগের লক্ষণ
মহিলাদের গনোরিয়া রোগের লক্ষণ
  • মূত্র ত্যাগ এর সময় ব্যথা ও জ্বালা।
  • বার-বার প্রস্রাবে যেতে হয়।
  • পিরিয়ডের সময় অতিরিক্ত রক্তপাত।
  • যোনি থেকে ঈষৎ হলুদ অথবা সবুজ পুঁজের মতন তরল বের হয়।
  • যৌনসঙ্গমের সময় ব্যথা।
  • গলায় ব্যাথা থাকে।
  • তলপেটে তীব্র ব্যাথা থাকে
  • জ্বর।

গনোরিয়া রোগ থেকে মুক্তির উপায়

উপরের লক্ষণ গুলো দেখে যদি মনে হয় আপনার গনোরিয়া হয়েছে। তাহলে দ্রুত ডাক্তার কে বলুন থেকে সঠিক চিকিৎসা নিলে মুক্তি পাওয়া যাবে। অসুরক্ষিত যৌন সঙ্গম এড়িয়ে চলুন, কন্ডমের ব্যবহার করুন। কোনও রকম সমস্যা হলে আপনার সঙ্গীকে জানান। সন্দেহ থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এটাই গনোরিয়া রোগ থেকে মুক্তির উপায়।
আপনার সমস্ত লক্ষণ ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সম্পর্কিত সমস্যা
আপনার যৌন জীবন
পূর্ববর্তী একই রকম সমস্যা থেকে থাকলে
আপনার সঙ্গীকে দ্রুত জানান, এবং তাকেও চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে বলুন।
চিকিৎসক আপনাকে যে অ্যান্টিবায়োটিক এর কোর্সটি নিতে বলেছেন সেটি অবশ্যই সম্পূর্ণ করুন।
৭-১০ দিনের ব্যাবধানে ডাক্তারের ফলোআপে থাকুন।
আপনি এবং আপনার সঙ্গীর সমস্ত পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ এলে তারপর যৌনসঙ্গমে লিপ্ত হন।

গনোরিয়া হয়েছে কিনা তা কিভাবে জানা যায়

রোগীর ইতিহাস শুনে রোগ সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা পাওয়া যেতে পারে। তবে ল্যাবরেটরী পরীক্ষা করেই কেবল রোগ নির্ণয় করা সম্ভব।
সংক্রমিত এলাকা থেকে রস সংগ্রহ করে পরীক্ষার পর গনোরিয়ার জীবাণু পাওয়া গেলে গনোরিয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া যায়।

আরো পড়ুনঃ  কাতিলা গাম খাওয়ার উপকারিতা কি | কাতিলা গাম খাওয়ার নিয়ম | কাতিলা গাম কখন খেতে হয় | কাতিলা গাম কোথায় পাওয়া যায়

You cannot copy content of this page

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker